1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন

তালায় উদ্বেগজনকভাবে বেড়েছে চুরি: প্রসাশনের হস্তক্ষেপ জরুরী

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৯ মে, ২০২১
  • ৬৪ বার পড়া হয়েছে

এসএম বাচ্চু,তালা: উদ্বেগজনকভাবে তালা উপজেলায় বেড়ে চলছে চুরির ঘটনা। এই সংঘবদ্ধ চোরের উপদ্রব বৃদ্ধির কারণে কেন্দ্রীয় মিল্কভিটা সমিতির সভাপতি দিবাস ঘোষের গাভী খামারের পাশে চুরির অভিযোগে উঠেছে।



জানা গছে, চলতি মাসে শহরের বিভিন্ন এলাকায় ২০টির অধিক চুরির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় থানায় একাধিক মৌখিক এবং লিখিতভাবে অভিযোগ হলেও পুলিশ মালামাল উদ্ধার ও প্রকৃত চোরকে চিহ্নিত বা গ্রেপ্তার করতে পারেনি। সর্বশেষ জানামতে বৃহস্পতিবার (২৭শে মে) উপজেলার জিয়ালা ঘোষপাড়া গ্রামের দিবাস চন্দ্র ঘোষের গাভীর খামারের মটর চুরি এবং বিগত কয়েক দিন আগে তার পিকআপ গাড়ির ব্যাটারী চুরির হয়েছে।



আরো জানা গেছে আঠারোই গ্রামের মোঃ বারিক মাষ্টার,ও হায়দার মোড়লের বাড়ি থেকে তাদের মটর চুরি করেছে এই সংঘবদ্ধ চোরচক্র। তাছাড়া তালা সদরের আগোলঝাড়া গ্রামের শেখ পাড়া জামে মসজিদ,একই এলাকার পশ্চিম পাড়ার মসজিদ,বারুইহাটি মসজিদের স্যোলারের ব্যাটারী চুরি হয়েছে বলে জানা গেছে।এবং আগোলঝাড়া গ্রামে রাতের আধাঁরে বিএম বাবলুর রহমানের বাড়ি হতে নগদ অর্থ ও মোবাইল চুরি হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে।



ভুক্তভোগী দিবাস চন্দ্র ঘোষ বলেন, দেশের দুধ উৎপাদনে ২য় বৃহত্তর জিয়ালা গ্রাম। আমার ৬০ টির মতো ছোট বড় গাভী আছে। এসব গাভীর মলমূত্র পরিষ্কার ও খামার পরিষ্কার পরিছন্নের জন্য এবং তীব্র গরমে গাভীদের গোছলের জন্য মোটর ব্যাবহার করতে হয়।গত ২৭শে মে বৃহস্পতিবার রাতে আমার খামারের মোটর চুরি হয়েছে কওে নিয়ে যায় চোরচক্র।  তিনি আরো বলেন বর্তমান এলাকায় চুরির পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে। এলাকায় যুবককেরা রাতে মোবাইল জুয়াও তাসের জুয়া খেলে। আমার ধারনা এই জোয়ারিরা জুয়া খেলার খরচ মেটাতেই রাতের আধাঁরে তাঁরা চুরি করছে এটি একটি সংঘবদ্ধ সক্রিয় চোর চক্র। এলাকার সাধারণ মানুষ মনে করেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এখুনি পদক্ষেপ না নিলে যুব সমাজ নষ্ট হয়ে যাবে।



নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান, উপজেলার আগোলঝাড়া গ্রামের রমরমা ভাবে চলছে জুয়ার আসর। সাধারণ মানুষ যখন ঘুমাতে যায় ঠিক তখনি এলাকার উঠতি বয়সের ছেলেরা অর্থের বিনিময় জুয়া,তাস,লুডু নিয়ে খেলতে বসছে। এসব জুয়ার সাধ মেটানোর জন্য চুরিও করছে তারা।



এ বিষয় স্থানীয় ইউপি সদস্য বাবু অরুণ কুমার ঘোষ ও ইউপি সদস্য মোঃ ওকেল খাঁ এই চুরি হওয়া ও জুয়া খেলার সতত্য স্বীকার করে বলেন, এলাকায় উৎশৃঙ্খল ও মাদকসেবী ছেলেরা গভিররাতে অবাধে চলাফেরা করে। তারা মাদক সেবনে ও জুয়া খেলার অর্থ যোগাতে এই ধরনের চুরি করছেন।এলাকায় সংঘবদ্ধ চোর চক্রের উত্থান হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।



তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী রাসেল বলেন,চোরের উপদ্রব বন্ধ করতে পুলিশ সবসময় সচেষ্ট আছে। আমরা প্রয়োজনে রাতে টহলরত পুলিশের টিমকে আরও সজাগ হওয়ার নির্দেশনা প্রদান করেছি। অতিদ্রুত সংঘবন্ধ চোর চক্র র্নিমূল করবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ