1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৫:২০ অপরাহ্ন

ইউপি নির্বাচন: জাপার সমর্থকদের উপর হামলা ও কুপিয়ে জখম

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৪ মার্চ, ২০২১
  • ৫৪ বার পড়া হয়েছে

এসএম বাচ্চু,তালা: সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ঘরবাড়িতে হামলা-ভাংচুর, ব্যবসায়ীর দোকানপাট ভংচুর, একজনকে কুপিয়ে জখম ও আটটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে। তালা ইউপির জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের উপর এ হামলা চালিয়েছে তালা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সরদার জাকিরের সন্ত্রাসী বাহিনী।



মঙ্গলবার মধ্যরাতে তালার খানপুর ঋষিপাড়ায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।গুরুতর আহত ওজিয়ার শেখ (৫০) তালা ইউনিয়নের মুড়াকলিয়া গ্রামের তফেজ উদ্দীন শেখের ছেলে।



খানপুর বাজারের ব্যবসায়ী হারুন মোড়ল জানান,আতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে আমার দোকানঘর ভাংচুর করা হয়েছে।হিন্দুদের বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ঘরবাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে। রাতে তান্ডব চালিয়েছে চেয়ারম্যান সরদার জাকিরের সন্ত্রাসী বাহিনীরা।



খানপুর গ্রামের বাসিন্দারা জানান, তালা ইউপির চেয়ারম্যান বর্তমানে নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সরদার জাকির হোসেন,তার ভাই ফারুক সরদারসহ ১০-১৫ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী এসে তান্ডব চালিয়েছে।



মনোহর দাস, উত্তম দাসের বাড়ির ঘেরাবেড়া ভাংচুর, মলয় দাসের বসতঘরের চাউনি ভাংচুর, মহাদেবের বাড়িতে হামলা করা হয়েছে। সন্ত্রাসীদের ছোড়া ইটপাটকেলে স্বপন দাসের মা আমাপতি দাস, বিধান দাস আহত হয়েছে।জাদব দাসকে হাতুড়ি দিয়ে পেটানো হয়েছে।সন্ত্রাসীদের তান্ডবে আমাদের এখানে বসবাস করার উপায় নেই।কিছু বলতে গেলে আমরা সংখ্যালঘু মানুষ,আবার হামলা চালাবে।



তালা সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বর্তমানে জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক এস.এম নজরুল ইসলাম জানান, আওয়ামী লীগের অনুপ্রবেশকারী সরদার জাকিরসহ তার পরিবার চিহ্নিত সন্ত্রাসী।



যার কারণে তার ভাই সরদার মশিয়ারকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠণিক সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সেই বহিষ্কার পত্রেও স্পষ্টভাবে তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী ও তান্ডবের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। তিনি বলেন, আতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে লাঙল প্রতিকের সমর্থক ওজিয়ার শেখকে কোপানো হয়েছে। মুমূর্ষ অবস্থায় তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।



আটটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে। আগামী ১১ এপ্রিল নির্বাচনে জনগন তাদের প্রত্যাখান করবে সেটি বুঝতে পেরে জনগণের উপর তান্ডব ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম শুরু করেছে। এরআগে সরদার জাকির তালা থানার এএসআকে মারপিট, তার ভাই মহিলা পুলিশ কন্সটেবল ও তার স্বামীকে মারপিট করেছে। আরেক ভাই নিকারী পাড়ার লুৎফর নিকারীকে হত্যা করেছে।



তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী রাসেল জানান, ঘটনাটি জানার পর রাতেই গিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি দেখেছি। বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে বুধবার (২৪ মার্চ) বেলা ১২টা পর্যন্ত এখনো মামলা হয়নি। তবে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ