1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৫:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কোটচাঁদপুর মডেল থানার উদ্যোগে নানা আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭মার্চ পালন তালা থানা পুলিশের উদ্যোগে ৭মার্চ উপলক্ষ্যে আনন্দ উদযাপন তালা বাজার মডেল সরকারি প্রাথ: বিদ্যালয়ের এসএমসি কমিটি গঠন দেবহাটায় নানা আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত তথ্য অধিকার আইন ব্যবহারের জন্য ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলে ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ দিবস পালিত পাইকগাছার একাধিক মামলার আসামী হালিম শিকারী আটক শেখ হাসিনা যাকে নৌকা দিবে তার পক্ষে সবাইকে কাজ করতে হবে :এমপি বাবু পাইকগাছায় নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস পালিত বঙ্গবন্ধুর এক ভাষণেই দেশের মানুষ স্বাধীনতার জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়ে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল : এমপি রবি

নরসিংদীতে বশির হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে

নরসিংদী প্রতিনিধি : নরসিংদীতে ব্যাবসায়ীকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে নরসিংদীর পুরানচর চরভাসানিয়া গ্রামের যুবসমাজের ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে অভিলম্বে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়। মানববন্ধনে গ্রামের ৫ শতাধিক মানুষ অংশ নেয়। গত বৃহস্পতিবার রাতে বশির মোল্লা নামে এক ড্রেজার ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় নিহতের ভাই কামরল ইসলাম বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ আবু দাইয়ানসহ ২৫ জনকে আসামি করে মাধবদী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যাকান্ডের ৮ দিন পেরিয়ে গেলেও অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। মানববন্ধনে পাইকার চর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের সাবের ইউপি সদস্য হারনুর রশিদ বলেন, পুরানচর চরভাসানিয়া গ্রামটি শান্তির একটি গ্রাম। এই গ্রামে আবু দাইয়ান ও তার লোকজনের ইয়াবা ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় তারা আমাদের বিরদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। এরই জেরে বশির মোল্লা ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাড়ি ফেরার পথে আবু দাইয়ান ও তারেকের নেতৃত্বে ৪০/৫০ জন লোক তার উপর হামলা চালায়। ওই সময় তারা এলোপাথারী কুপিয়ে হত্যা করে। আমরা এর বিচার চাই। নিহতের মা ভানু বলেন, আমার ছেলে দুপুরে খেয়ে তার ব্যাবসায় প্রতিষ্ঠানে যায়। সন্ধায় সেখান থেকে বাড়ি ফেরার পথে আবু দাইয়ান ও তারেকের নেতৃতে অহিদুল শহিদুল, আমান, শফি, নুরল ইসলাম ও রানা ডাকাতসহ ৪০/৫০ জন লোক তাকে কুপিয়ে হত্যাকরে লাশ নদীতে ডুবিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে সেখানে গেলে তারা আমার গলায় দা ধরে। পরে লাশ নদীতে ডুবিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। তখন আমি লাশ জড়িয়ে শুয়ে পড়ি। এলাকার লোকজন এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ