1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১১:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বিশ্বজুড়ে ডেল্টার ঢেউ: বিভিন্ন দেশে রেকর্ড সংক্রমণ প্রশংসা পাচ্ছে অপূর্ব-মেহজাবিনের ‘অন্য এক প্রেম’ কিছু বিদেশি গণমাধ্যম দেশ ও সরকারের বিরুদ্ধে ভুল সংবাদ দেয় আশাশুনিতে সাতক্ষীরা জেলা পরিষদ সদস্য সাজাপ্রাপ্ত আসামী দেলোয়ার গ্রেপ্তার দেবহাটায় নেট-পাটা অপসারণে ইউএনও’র অভিযান, জরিমানা শার্শায় এক সন্তানের জননীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ সাতক্ষীরা সামেক হাসপাতালে ইন্টার্ন ডাক্তারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি রবি ভারী বর্ষণে প্লাবিত জনগণের পাশে সোহেল বাল্য বিবাহ; ছেলে, বর-কনের অভিভাবক ও পুরোহিতকে জরিমানা কপিলমুনিতে জনসম্মুখে টানানো হলো ওয়ারেন্টভুক্ত আসামীদের নামের তালিকা

৩৮ হাজার মানুষের কাটা নাকের সমাধি

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৮৪ বার পড়া হয়েছে

ফিচার ডেস্ক : জাপানের কিয়োটো শহরের নিরিবিলি আবাসিক এলাকার মাঝে আছে একটি সমাধি। ঘাসে আচ্ছাদিত ৩০ ফুট উঁচু টিলা সদৃশ এ সমাধি তৈরি করা হয় ১৬ শতকের শেষের দিকে। এর নাম ‘মুমুজিকা টিলা’। কোরিয়া-জাপানের যুদ্ধের সময় কোরিয়ান প্রায় ৩৮ হাজার নারী-পুরুষ ও শিশুর নাক কেটে নেয় জাপানিরা। এরপর ওই নাকগুলো পাঠানো হয় জাপানে। এরপর একসঙ্গে ৩৮ হাজার কাটা নাকের সমাধি দেওয়া হয় জাপানের কিয়োটো শহরে।

noses-(3).jpg

টয়োটোমি হিদায়িশির নেতৃত্বে জাপান ১৫৯২ সালে কোরিয়ান উপদ্বীপ এবং চীন দখলের উদ্দেশ্যে কোরিয়া আক্রমণ করেছিল। যা তখন মিং রাজবংশের অধীনে ছিল। জাপানি বাহিনী কোরিয়ান উপদ্বীপ দখল করতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সফল হয়েছিল। তবে তারা চীন দখল করতে ব্যর্থ হয়। এর কয়েক বছর পর ১৫৯৭ সালে মিং এবং কোরিয়ার জোসোনের সম্মিলিত বাহিনীর একটি শক্ত প্রতিরক্ষা দল জাপানকে দক্ষিণ উপদ্বীপে যেতে বাধ্য করে। সেখানেই দুই বিরোধী সেনাবাহিনীর মধ্যে টানা ১০ মাস যুদ্ধ হয়। ১৫৯৮ সালে টয়োটোমি হিদায়িশির আকস্মিক মৃত্যুর পর এ শত্রুতার অবসান ঘটে। তবে ১০ মাস যুদ্ধ চলাকালীন জাপানিরা অনেক কোরিয়ান ও চীনা নাগরিকের মাথা কেটে লবণ মাখিয়ে প্যাকেট করে জাপানে পাঠাতে থাকে। সেখানে জাপানি সামরিক বাহিনী গণনা করত, তারা ঠিক কতজনকে হত্যা করেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে জাপানি সৈনিকদের পুরস্কৃতও করা হয়েছিল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ