1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৯:১৪ অপরাহ্ন

সাকিবকে মিস করেছেন অধিনায়ক

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৪ বার পড়া হয়েছে

স্পোর্টস ডেস্ক : সদ্য সমাপ্ত চট্টগ্রাম টেস্টের শেষদিন প্রায় পুরোটাই তিনজন বদলি ফিল্ডার নিয়ে খেলেছে বাংলাদেশ দল। একাদশে না থাকলেও ফিল্ডিং করেছেন ইয়াসির আলি রাব্বি, সাইফ হাসান ও মোহাম্মদ মিঠুন। এদের মধ্যে মিঠুন-সাইফরা নেমেছেন তামিম ইকবাল, নাঈম হাসান, সাদমান ইসলাম কিংবা মুমিনুল হকের পরিবর্তে ফিল্ডিং করতে। শুধুমাত্র ইয়াসির রাব্বি মাঠে ছিলেন পুরোটা সময়, তাও ইনিংসের একদম শুরু থেকে। কেননা তিনি নেমেছেন সাকিব আল হাসানের পরিবর্তে। যিনি ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের পর নামতেই পারেননি মাঠে। প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে সাকিব করেছিলেন ৬৮ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ ওভার বোলিং করে বাম ঊরুর চোটে ছিটকে যান ম্যাচ থেকে, ফিরতে পারেননি মাঠে। রোববার ম্যাচের শেষদিন সাকিবের সার্ভিস পায়নি বাংলাদেশ। স্পিনে নাইম, তাইজুল, মেহেদি মিরাজরা যখন চাপে ফেলতে পারছিলেন না কাইল মায়ারস ও এনক্রুমাহ বোনারকে, তখন সবার চোখ খুঁজে বেরিয়েছে সাকিবকেই। মাঠের ঠিক বাইরে বসে সারাদিনের খেলা দেখেছেন সাকিব, দেখেছেন নিজ দলের অবিশ্বাস্য পরাজয়ের হতাশার গল্প। কিন্তু চোটের কারণে নামা হয়নি বল হাতে। নিজে নামতে না পারলেও বাউন্ডারির বাইরে থেকে কখনও অধিনায়ক মুমিনুল হক, আবার কখনও অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজকে টুকটাক পরামর্শ দিয়েছেন সাকিব। এতেও কাজ হয়নি কোনো, বাংলাদেশ ম্যাচ হেরেছে ৩ উইকেটের ব্যবধানে। বিশেষজ্ঞদের মতে, বোলিংয়ের সময় সাকিবকে পেলে হয়তো চতুর্থ উইকেটে মায়ারস-বোনার ২১৬ রানের জুটি গড়তে পারতেন না। টিম বাংলাদেশও মিস করেছে সাকিবকে। ম্যাচ শেষে তা অকপটেই স্বীকার করেছেন মুমিনুল। সাকিবকে না পাওয়ার বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ! (মিস করেছি) বলতে পারেন। সাকিব ভাই থাকলে বোলিং অনেক গোছানো হতো। যেহেতু সিনিয়র বোলার, সিনিয়র ব্যাটসম্যান, সবাইকে আগলে রাখতে পারতেন। উনি না থাকায় মিস করেছি, বিশেষ করে বোলিংয়ে।’ মুমিনুল আরও যোগ করেন, ‘অধিনায়ক হিসেবে উনার সঙ্গে খুব বেশি ম্যাচ খেলিনি। এই প্রথম সুযোগ ছিল। আগে খেললে হয়তো ওভাবে অনুভব করতাম। সাকিব ভাই না থাকার পরও অবশ্য স্পিনাররা ভালো করেছে। তাইজুল, নাঈম মিরাজ ভালো করেছে। যে বোলিং অ্যাটাক ছিল ওরা একটু ভালো লেন্থে বল করলে… ওরা ম্যাচ জেতানোর যোগ্য। আমরা একটু দুর্ভাগা ছিলাম, ভালো জায়গায় বল করতে পারিনি।’ টাইগার অধিনায়কের মতে, উইকেট তেমন সহজ ছিল না ব্যাটিংয়ের জন্য। বোলারদের জন্যও ছিল অনেক সুযোগ। কিন্তু সেগুলো কাজে লাগাতে না পারার হতাশাই মুমিনুলের কণ্ঠে, ‘উইকেটে যথেষ্ট সুযোগ ছিল। আমরা আমাদের সুযোগ কাজে লাগাতে পারিনি। বোলাররাও ভালো জায়গায় বল করেছে। সুযোগগুলো যদি কাজে লাগাতে পারতাম, খেলাটা অন্যরকম হতে পারতো। দুই ব্যাটসম্যানের দুইটা সুযোগ ছিল। কাজে লাগালে মোমেন্টাম বদলে যেত।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ