1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৭:২৪ পূর্বাহ্ন

তালায় বন্যপ্রাণী সংরক্ষন গনসচেতনা মূলক সভা

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৫৯ বার পড়া হয়েছে

এসএম বাচ্চু,তালা সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: খাঁচার ভিতরে থেকে কথার বুননি গেথে চলছিল শালিকটি। লাফিয়ে লাফিয়ে একবার এ মাথা- আরেকবার ও মাথা করছিল। আবার কিছু সময়ের জন্য পায়ের নখে নিজের পালকগুলি আচড়ে নিচ্ছিল সে । কিন্তু ক্যামেরার মুখোমুখি হতেই তার যত লজ্জা। ক্লিক করার সময়ে বারবার মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছিল।’ আজ রবিবার সকালে খেশরা ইউনিয়নের শালিখা ডিগ্রী কলেজ এ গিয়ে দেখা যায়, নিচতলায় একটি লোহার খাঁচায় রাখা হয়েছে শালিকটিকে। শালিকটিকে বাচ্চা অবস্থায় কুড়িয়ে পান পাশের এলাকার ৮বছরের মুনতাসির মামুন তূর্য । তালা উপজেলা জীববৈচিত্র রক্ষার উদ্দেশ্যে গঠিত স্বেচ্ছাসেবীদের অনুপ্রেরনায় ৩বছরের পালিত পাখিটি অবমুক্ত করে দেন যশোর জোন, সামাজিক বনা ল এর বন রক্ষক মোল্যা রেজাউল করিম ও পাখিটির পালক মুনতাসির মামুন তূর্য।
২৪জানুয়ারি বন্যপ্রাণী ব্যাবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ, খুলনা’র আয়োজনে শালিখা ডিগ্রী কলেজ অডিটোরিয়ামে ‘ বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে গন সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তারিফ-উল-হাসান এর সভাপতিত্বে সমগ্র অনুষ্ঠানটি স ালনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ছাত্রী আসপিয়া আক্তার বৃষ্টি। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সামাজিক বনা ল, যশোর অ লের বনরক্ষক মোল্ল্যা রেজাউল করিম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন খুলনা বিভাগীয় বন্যপ্রাণী ব্যাবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের মৎস্য বিশেষজ্ঞ মফিজুর রহমান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসাবে সচেতনতামূলক বক্তব্য দেন তালা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, বন্যপ্রাণী ব্যাবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ এর খুলনা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা নির্মল কুমার পাল, সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের সদস্য ও তালা রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি মীর জাকির হোসেন, তালা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুরশিদা পারভিন পাঁপড়ি ও শালিখা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ বিধান চন্দ্র সাধু। অন্যান্যদের মধ্যো উপস্থিত ছিলেন শালিখা ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা সরদার সুজাত আলি, খেশরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাজিব হোসেন রাজু, তালা রিপোর্টার্স ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক এস আর আওয়াল, আলোকিত শাহপুর’র পরিচালক মাসুদ আল কবির রাজন, জীববৈচিত্র রক্ষা স্বেচ্ছাসেবী রাশেদ বিশ্বাস, শ্রীমন্তকাটি ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুবেল হোসেন ও খেশরা ব্লাড ফাউন্ডেশনের পরিচালক ছাত্রলীগনেতা সুমন হোসেন গোলদার। প্রধান অতিথি বলেন, সম্প্রতি বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ বিভাগের পক্ষ থেকে বন্য প্রাণী উদ্ধার অভিযানের পাশাপাশি শৌখিন পশুপাখি পালনকারী ও বিক্রেতাকে সচেতন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আমরা খুলনা বিভাগের বিভিন্ন পাখি ব্যাবসায়ীদের বন্যপশুপাখি ধরা এবং বিক্রি বন্ধের অনুরোধ জানিয়েছি। একই কথা বলছি শৌখিন পালনকারীদেরও। এর ফলে অনেকে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন এবং স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে আমাদের কাছে বিভিন্ন পশুপাখি দিয়ে গেছেন তা আমরা প্রকৃতিতে অবমুক্ত করেছি। তা ছাড়া এখন এগুলো প্রকাশ্যে বিক্রিও অনেক কমে এসেছে। আমরা মনে করি, এ ক্ষেত্রে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার চেয়ে উদ্বুদ্ধ করার মাধ্যমে সচেতনতা সৃষ্টি করতে পারলে অনেক বেশি সুফল পাওয়া যায়। বন্য প্রাণী সংরক্ষণ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত বছরের নভেম্বর মাস থেকে এ পর্যন্ত খুলনা বিভাগের বিভিন্ন এলাকা থেকে উদ্ধার করা অন্যান্য প্রাণীর মধ্যে রয়েছে ১২৯টি কচ্ছপ, একটি সজারু, কয়েকটি সাপ এবং ১৩টি টিয়া পাখি।
সভায় বনকর্মকর্তা নির্মল কুমার পাল প্রজেক্টরের মাধ্যমে বনআইন ও বনবিভাগের বিভিন্ন কর্মকান্ড তুলে ধরেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ