1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন

সাংবাদিক শাওনকে হত্যার হুমকি: প্রেসক্লাবের নিন্দা ও জিডি

  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৮৫ বার পড়া হয়েছে

দেবহাটা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান শাওনকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। শনিবার বিকাল ৩.০১ মিনিটে, ৩.৩৭ মিনিটে ০১৯৪৫৭৯৮৫০৪ নাম্বার থেকে এবং রবিবার বিকাল ৪.২০ মিনিটে ও ৪.৩৭ মিনিটে ০১৯৫২৪৪১২০৪ নাম্বার থেকে দেবহাটা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসানের ব্যাক্তিগত মোবাইল ০১৭১৩৯৩৩৫৫৩ নাম্বারে ফোন করে চার দফায় তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। তাছাড়া ফেসবুকেও কয়েকটি আইডি থেকে মাহমুদুল হাসান শাওনকে উদ্দেশ্য করে তার ছবি ব্যবহার করে বিভ্রান্তিকর ও আপত্তিকর পোষ্ট দিয়ে সম্মানহানী করে হুমকিদাতারা। এঘটনায় রবিবার উপজেলার গরুহাট এলাকার গ্রীল মিস্ত্রী ঘড়িয়াডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা হাফিজুল ইসলাম ও তার বখাটে ছেলে ইয়াবা ব্যবসায়ী, ছাগল চোর এবং নারী কেলেঙ্কারীর ঘটনায় ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত সাইদুর রহমান সোহাগের বিরুদ্ধে দেবহাটা থানায় তিনি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। ডায়েরী নং- ৫৪৯/২০২১। ডায়েরী পরবর্তী পুলিশ তাৎক্ষনিক তদন্তে হুমকি দেয়ার সত্যতা পেয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি বিপ্লব কুমার সাহা। সাংবাদিক মাহমুদুল হাসান শাওন বলেন, দেবহাটার অন্যতম চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী সাইদুর রহমান সোহাগ। সে গরুহাট এলাকার গ্রীল মিস্ত্রি ও ঘড়িয়াডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা হাফিজুলের ছেলে। ইতোপূর্বে সোহাগ ৩০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হয়ে দীর্ঘদিন জেলের ঘানি টেনেছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ১৯ (১) ৯/ক ধারার জিআর-৪৫/১৮ মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামী সে। তাছাড়া এলাকায় ছাগল চুরি ও নারী কেলেঙ্কারীর ঘটনায় একাধিকবার গ্রেপ্তার এবং সর্বশেষ ছাত্রলীগ থেকেও বহিষ্কার হয় সোহাগ। তাদের পুরো পরিবার মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। সোহাগের চাচা শরিফুল ইসলাম জীবন ফেন্সিডিলসহ গ্রেপ্তার হয়ে দীর্ঘদিন জেল খাটার পর তথ্য গোপন করে ও মোটা টাকা ঘুষ দিয়ে পুলিশ কনষ্টেবল হিসেবে নিয়োগ পেয়েছে। এসব ঘটনায় একাধিকবার মাদক ব্যবসায়ী সোহাগের বিরুদ্ধে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় পূর্ব থেকেই আমার বিরুদ্ধে ক্ষিপ্ত ছিল সে। সম্প্রতি ওই বখাটে, ইয়াবা ব্যবসায়ী, ছাগল চোর ও ইভটিজার সোহাগের বাবা একসময়কার নামকরা চোরাচালানী হাফিজুল পারুলিয়া ইউপিতে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীতা ঘোষনা দিয়েছে, যা কেবলই হাস্যকর ও লজ্জাজনক বলে মনে করছেন ইউনিয়নের মানুষ। শনিবার পারুলিয়ার সাধারণ ভোটারদের মতামত তুলে ধরে বিভিন্ন পত্রিকায় পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হালচাল শীর্ষক একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়, যেখানে গ্রীল মিস্ত্রী হাফিজুলের নাম দেয়া হয়নি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শনিবার বিকাল ৩.০১ মিনিটে ও ৩.৩৭ মিনিটে দু’বার ০১৯৪৫৭৯৮৫০৪ নাম্বার থেকে বখাটে, ছাগল চোর ও মাদক ব্যবসায়ী সোহাগ এবং তার বাবা হাফিজুল আমার ফোনে কল দিয়ে আমাকে হত্যাসহ আমার চোখ তুলে নেয়ার হুমকি দেয়। একইসাথে তারা ফেসবুকে আমার ছবি সম্বলিত ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর লেখা পোষ্ট করে আমার সম্মানহানী করে। সর্বশেষ রবিবার বিকাল ৪.২০ মিনিটে ও ৪.৩৭ মিনিটে আবারো ০১৯৫২৪৪১২০৪ নাম্বার থেকে দুইবার মাদক ব্যবসায়ী সোহাগের ফুফু ও চুয়াডাঙ্গা জেলার ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে এক নারী আমাকে পুনরায় হত্যার হুমকি দেয়। পরে চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের সাথে কথা বললে উল্লেখিত ফোন নাম্বার ব্যবহারকারী কোন ম্যাজিষ্ট্রেট চুয়াডাঙ্গায় নেই বলে জানান তিনি। একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও তার লোকজন কর্তৃক একাধিকবার সাংবাদিক মাহমুদুল হাসান শাওনকে হত্যার হুমকি দেয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দেবহাটা প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দরা। প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুর রব লিটু স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলোক শাস্তির দাবী জানানো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ