1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
খলিশাখালিতে প্রতিবাদ সমাবেশ, প্রশাসনের সহযোগীতা চান ভূমিহীনরা পাইকগাছার আমুরকাটায় মান্নান গাজীর নৌকা প্রতীকের পথসভা অনুষ্ঠিত পাইকগাছায় বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ ও ৬ষ্ঠ জাতীয় বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত কপিলমুনিতে গভীর রাতে ডাকাতির পরিকল্পনাকালে ১ ডাকাত আটক সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ রুহুল কুদ্দুসের সাথে সাংবাদিক ইউনিয়নের মতবিনিময় ইভ্যালির রাসেল-শামীমা গ্রেফতার, নেওয়া হলো র‌্যাব সদর দপ্তরে এবার শিক্ষার্থীদের নিয়ে হবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন প্রাক্তন স্বামীকে খোঁচা দিলেন মাহিয়া মাহি? অসহায় মানুষের মাঝে রোটারী ক্লাব অব জাহাঙ্গীরনগর ঢাকা’র পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা বিতরণ তালা সদরে লাঙ্গলের পথসভায় জনসমুদ্র

মেয়রপ্রার্থীর উঠান বৈঠকে মন্ত্রীপুত্রের হামলা: আহত ১২

  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৯০ বার পড়া হয়েছে

নরসিংদী প্রতিনিধি : নরসিংদীর মনোহরদী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আমিনুর রশিদ সুজনের উঠান বৈঠকে শিল্পমন্ত্রীর ছেলের নেতৃত্বে হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে মেয়রপক্ষের কমপক্ষে ১০-১২জন আহত হয়েছে। এসময় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মু.ফজলুল হকের প্রাইভেটকার ও ৭-৮টি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করেছে হামলাকারীরা। বুধবার (১৩ জানুয়ারি) রাত ১০টায় মনোহরদী হিন্দু পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। স্থায়ী সূত্রে জানা যায়, শিল্পমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নূরল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূনের ছেলে মঞ্জুরল মজিদ মাহমুদ সাদী মনোহরদী পৌরসভা নির্বাচনে চারজন কাউন্সিলর প্রার্থীকে সমর্থন দেন। এদের প্রত্যেকেই মাদকসেবী এবং মাদক কারবারির সাথে জড়িত। এসব প্রার্থীদেরকে সমর্থন দেওয়ার জন্য আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আমিনুর রশিদকে চাপ প্রয়োগ করেন মন্ত্রী পুত্র সাদী। কিন্তু মেয়র সুজন বিষয়টি গুরত্ব না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত ছিলেন সাদী। বুধবার রাতে মনোহরদী হিন্দুপাড়ায় পূর্ব নির্ধারিত উঠান বৈঠক ছিল নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আমিনুর রশিদ সুজনের। রাত ১০টার দিকে উঠান বৈঠক শেষ পর্যায়ে মন্ত্রী পুত্র মঞ্জুরুল মজিদ মাহমুদ সাদীর নেতৃত্বে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে বৈঠকে হামলা করা হয়। তাদের হামলায় মেয়রের ছোট ভাই মামুন, তন্ময়, কর্মী বিটন, সাম্মীসহ কমপক্ষে ১০-১২জন আহত হয়েছে। এ সময় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মু. ফজলুল হকের প্রাইভেটকার ভাংচুর করা হয় এবং উঠান বৈঠকে আগত নেতাকর্মীদের ৭-৮টি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছুড়ে। পরে মেয়র পক্ষের লোকজনের প্রতিরোধে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। হামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে পৌর এলাকার সর্বস্তরের লোকজন মনোহরদী বাসষ্ট্যান্ডসহ প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল বের করে।এ সময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা মন্ত্রীপুত্র সাদীসহ তার সহযোগীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানায়। অন্যথায় বৃহত্তর কর্মসূচিসহ পুরো মনোহরদী অবরুদ্ধ করার হুমকি দেওয়া হয়। এই মুহুর্তে মনোহরদী পৌর শহরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ