1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন

কাউন্সিলর প্রার্থী অনজু কর্তৃক ফিরোজের কর্মী-সমর্থকদের উপর হামলা- আহত-২

  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১২২ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি : আসন্ন সাতক্ষীরা পৌরসভা নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী কাজী ফিরোজ হাসানের গণজোয়ারে পরাজয় নিশ্চিত ভেবে হিংসার্থকভাবে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে অপর কাউন্সিলর প্রার্থী আসাদ আহমেদ আনজু কর্তৃক পৌর নির্বাচনে বারবার নির্বাচিত কাউন্সিলর কাজী ফিরোজ হাসানের পক্ষে নির্বাচনী কাজ করায় কর্মী ও সমর্থকদের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। রোববার (১০ জানুয়ারী) রাত ৯ টার দিকে শহরের সুলতানপুর বড় বাজারে এঘটনা ঘটে। হামলায় ফিরোজ হাসানের ২জন কর্মী ও সমর্থক গুরুতর আহত হয়েছে এবং আরো ৫/৬জন আহত হয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা নিয়েছে। আহতদের সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়াও সুলতানপুর বড় বাজারে কাঁচা ও পাকা মাল ব্যবসায়ী সমিতির সেক্রেটারী মো. আব্দুর রহিম বাবুকে হুমকি, দোকানে হামলা ও বাঁধা দেওয়ায় পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখমের ঘটনা ঘটেছে। এতে গুরুত্বর আহত হয়ে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে চা বিক্রেতা কাশেম ও তরকারি ব্যবসায়ী কাফিরুল। এঘটনায় সাতক্ষীরা সদর থানায় উভয় পক্ষ অভিযোগ দাখিল করেছে। লিখিত অভিযোগ সূত্রে ও বড় বাজার কাঁচা ও পাকা মাল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম বাবু বলেন, রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে সুলতানপুর রোম টেইলার্স এর পাশে দাঁড়িয়ে আমি ও খোকন কথা বলছিলাম। এসময় কাউন্সিলর প্রার্থী আসাদ আহমেদ অনজুর নির্দেশে পিছন থেকে এসে সুলতানপুর এলাকার মৃত সবুরের ছেলে মিলন ও মৃত মধুর ছেলে বাবু আমাকে হুমকি ধামকি দেয় এবং প্রকাশ্যে বলে, কাজী ফিরোজ হাসানের পক্ষে কাজ করলে তোর খবর আছে। আমরা ০৪নং ওয়ার্ডের সব পয়েন্টে লোক রেখেছি। হাত পা কিন্তু ভেঙ্গে ফেলা হবে যে ফিরোজের পক্ষে কাজ করবে।’ পরে রাত ৯টার দিকে সুলতানপুর বড় বাজারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মেসার্স মল্লিক ভান্ডারে আসাদ আহমেদ অনজু, তার ভাই রঞ্জু তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে একই গ্রামের বেলালসহ কয়েকজন অতর্কিতভাবে আমার দোকানে ঢুকে সন্ত্রাসী স্টাইলে হট্রগোল শুরু করে আমাকে হুমকি ও মারধর করতে যায়। এসময় কাশেম ও কাফিরুন তাদের বাঁধা দেয়। বাঁধা দেওয়ায় তাদেরকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখমের ঘটনা ঘটে। এঘটনার পর খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ