1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থী কবির উদ্দীন তোতাকে সংবর্ধনা দেবহাটায় প্রভাবশালী কর্তৃক নির্যাতিত সংখ্যালঘু পরিবারের সংবাদ সম্মেলন দেবহাটা’য় আ.লীগের নৌকার দলীয় মনোনয়ন গ্রহণ দেবহাটায় আ.লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আসাদুলের সংবাদ সম্মেলন যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা : শ্বশুর আটক কুলিয়ায় জনসাধারণের সাথে মতবিনিময় করলেন আছাদুল হক বাংলাদেশ গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতির সদস্যদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য সাইন্টিফিক সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্যামনগরে কমিউনিটি ওয়াশ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত পাইকগাছা উপজেলায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষাকল্পে জরুরী মতবিনিময় রেড ক্রিসেন্ট পক্ষ থেকে বাংলাদেশ অবসর প্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী কল্যাণ সমিতির মাঝে মাস্ক প্রদান

দালাল না ধরলে মেলে না পাসপোর্ট হয়রানীর শিকার সাধারণ মানুষ

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৩৯ বার পড়া হয়েছে

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদী আ লিক পাসেপোর্ট অফিসে ঘুষ ও দালাল ধরা ছাড়া মিলছে না পাসপোর্ট। এতে করে বিদেশ ফেরত প্রবাসীরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, দালাল ধরে চাহিদার টাকা দিলেই সময়মতো মিলছে পাসপোর্ট। এছাড়া সাধারণ সেবা প্রত্যাশীরা আবেদন করেও সময়মতো পাচ্ছেন না পাসপোর্ট। এদিকে আজ বেলাব উপজেলার চরকাশিমনগর এলাকা থেকে আসা আল-আমিন অভিযোগ করে বলেন করোনা সংক্রমণের আগে সৌদি আরব থেকে দেশে এসে আটকা পড়ে গেছি। এর মধ্যে পাসপোর্টের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় কোনও দালাল ছাড়াই আ লিক পাসপোর্ট অফিসে আবেদন করেন। ছবি ওঠানো ও বায়োমেট্রিক শেষে পাসপোর্ট পাওয়ার কথা ছিল গত ১ মাস আগে। তিনি পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে এসে দেখেন কাজ হয়নি। পরে জানতে পারেন তার পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাগজ না আসায় পাসপোর্ট ছাপা হয়নি। এরপর আরও দুইদিন অফিসে এসেও পাসপোর্ট পাননি। এসময় তিনি জানতে পারেন চাহিদা অনুযায়ী ঘুষ না দিলে ও দালালের মাধ্যমে কাজ না করায় তার পাসপোর্টের কাজ হয়নি। আরেক ভুক্তভোগী মোঃ শাহীন মিয়া বলেন, ‌‘দালাল না ধরে অফিসে সরাসরি আবেদন জমা দেওয়ায় পাসপোর্ট পাচ্ছি না। অফিস খরচের নামে দালালকে প্রতি পাসপোর্ট বাবদ তিন থেকে চার হাজার টাকা অতিরিক্ত দিতে হয়। তাছাড়া ১০৩ এর আইপি নাম্বার না হলে মিলে না ফিঙ্গারপ্রিন্ট। এই আইপি নাম্বার এর নাম ব্যবহার করে অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তারা খাচ্ছে ঘুষ। একই সমস্যা সৌদি প্রবাসী রায়পুরার আবুল কালামের। তিনি নিজেই দোকান থেকে অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করে গত কিছুদিন পূর্বে জরুরি হিসেবে সাত হাজার ২০০ টাকা ব্যাংকে জমা দিয়ে এমআরপির জন্য আবেদন করেন। পাসপোর্ট পাওয়ার কথা ছিল গত মাসে। সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরেও বেশ কয়েকবার অফিসে এসে জানতে পারেন তারও পাসপোর্ট হয়নি। আবুল কালাম বলেন, ‘দালালের মাধ্যমে ঘুষ না দেওয়ায় পাসপোর্ট পাওয়া যাচ্ছে না। নিজে আবেদন জমা দিলেও কাউন্টারের লোকজন নানা সমস্যার কথা জানিয়ে দেয়। কিন্তু দালাল ধরে তাদের চাহিদার টাকা দিয়ে আবেদন করলে সময়ের আগেও পাসপোর্ট হাতে পাওয়া যায়। সময়মতো পাসপোর্ট না পাওয়ায় সৌদি আরবে যাওয়ার তার ভিসার মেয়াদ পেরিয়ে গেছে।’ নরসিংদী আ লিক পাসপোর্ট অফিসের সামনে আজ বিভিন্ন ভুক্তভোগীরা সংবাদ কর্মী রুদ্র এর নিকট এ ধরনের সমস্যার কথা জানান। এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় একাধিক দালাল বলেন, ‘পাসপোর্ট অফিসে একটি সিন্ডিকেট রয়েছে, যারা দালালদের কাছ থেকে প্রতিটি পাসপোর্ট আবেদন জমা নেন এবং এর জন্য টাকা দিতে হয়।’ এছাড়া আরো বলেন, মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) নতুন এবং রি-ইস্যু এমআরপির জন্য ১০০০ টাকা, নতুন ই-পাসপোর্টের জন্য ১২০০ টাকা হারে সিন্ডিকেট সদস্য আনসার এর কাছে জমা দিতে হয়। প্রতিটি পাসপোর্টের জন্য আগে ১০০০ টাকা দিতে হলেও নতুন ডিডি এসে ঘুষের পরিমাণ বাড়িয়ে ১৫০০ টাকা করেন। পরে সবার অনুরোধে তা ১২০০ টাকা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
আরো অনেক দালাল জানান, নতুন ই-পাসপোর্টের আবেদন দালাল ছাড়া সাধারণ মানুষ জমা দিতে গেলে নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এ জন্য পাসপোর্ট প্রত্যাশীদের দালালের শরণাপন্ন হতে হচ্ছে। একটি পাসপোর্ট করতে যে টাকা মানুষের কাছ থেকে নেওয়া হয়, এর বেশিরভাগই অফিস খরচ হিসেবে কর্মচারীদের হাতে তুলে দিতে হয়। কাজ শেষে একজন দালাল দুই থেকে আড়াইশ’ টাকা পান। এছাড়া আরো বলেন, ‘পাসপোর্ট পেতে হলে অফিসের ঘুষের চ্যানেল মেনেই কাজ করতে হয়। তা না হলে আবেদনের সঙ্গে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রে নানা সমস্যা দেখিয়ে পাসপোর্ট পেতে দীর্ঘদিন অপেক্ষা করানো হয়।’ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নরসিংদী পাসপোর্ট অফিসের এক কর্মকর্তা বলেন, সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ঘুষের টাকা পদ-পদবী অনুযায়ী ভাগ বাটোয়ারা হয়ে থাকে। তবে নরসিংদী আ লিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক মানিক চন্দ্র দেবনাথ বলেন, দালাল ও অফিসে সিন্ডিকেট করে ঘুষ নেওয়া হয় কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ