1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কাশেমপুরে মাদানী জামে মসজিদের ছাদ ঢালাইয়ের উদ্বোধন দৈনিক দৃষ্টিপাত পত্রিকার সম্পাদকের সহধর্মীনির অকাল মৃত্যুতে সাতক্ষীরা সাংবাদিক ইউনিয়নের শোক কলারোয়ার যুগিখালীতে ৪র্থ বার বিনা প্রতিন্দীতায় নির্বাচিত ইউপি সদস্য মফিজুল ইসলাম দৈনিক দৃষ্টিপাত পত্রিকার সম্পাদকের সহধর্মীনির অকাল মৃত্যুতে এমপি রবি’র শোক ছোট ভাইকে উদ্ধারের দাবীতে বড় ভাইয়ের সংবাদ সম্মেলন সাতক্ষীরায় ওর্য়াড পুলিশিং কমিটির সভা অনুষ্ঠিত দেবহাটা প্রেসক্লাবের বার্ষিক সভায় বর্তমান কমিটির মেয়াদ বর্ধিত; সদস্য অন্তর্ভূক্তির লক্ষ্যে উপ-কমিটি খলিশাখালি দখলের এক সপ্তাহ; জমি পুনরুদ্ধারে দখলচ্যুত মালিকদের সংবাদ সম্মেলন জেলা আলীগের সাধারন সম্পদক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের সাথে সাংবাদিক ইউনিয়নের শুভেচ্ছা বিনিময় খলিশাখালিতে প্রতিবাদ সমাবেশ, প্রশাসনের সহযোগীতা চান ভূমিহীনরা

নরসিংদী জেলায় নতুন বৎসর উপলক্ষ্যে বিভিন্ন বিদ্যালয়ে বই বিতরণ

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১০০ বার পড়া হয়েছে

সাইফুল ইসলাম রুদ্র,নরসিংদী : নরসিংদী সদর উপজেলা চর আড়ালিয়া ইউনিয়নে ৫০নং টিডির চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বই বিতরণ করেন। এসময় ছাত্র-ছাত্রী তাদের বই নিয়ে আনন্দ ও উল্লাস করেন। এসময় এ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সংবাদকর্মী রুদ্রকে জানান- স্কুলের ভবনের নিরাপত্তার জন্য পূর্ব ও উত্তর দিকে গাইডওয়াল না থাকায় আমরা চরম ঝুঁকিতে স্কুল পরিচালন করতেছি। শুধু তাই নয়, স্কুরের বারান্দায় গ্রীল নির্মাণ প্রয়োজন ছিল কিন্তু না হওয়ায় এলাকাবাসী প্রায় সময়ই আমাদেরকে বলেন, কিন্তু বললেও আমাদের সরকারি ভবন, তাই সরকারি বাজেট ছাড়া আমরা কোন কাজ করতে পারিনা। এই স্কুলে পর্যাপ্ত শিক্ষক না থাকায় আমরা পাঠদান করতেও হিমসীম খাচ্ছি।  এদিকে একই স্কুলের ম্যানেজিং সদস্যরা বলেন যেহেতু আমাদের এটি চরা ল তাই যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় অধিকাংশ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট রয়েছে। কিন্তু অনেক স্কুলের শিক্ষকরা মোটা অংকের অর্থ দিয়ে নিজের সুবিধামত বিদ্যালয়ে চলে যায়। কিন্তু আমাদের চরা লে শিক্ষকরা থাকতে চান না। তারই প্রভাব পড়ছে আমাদের কোমলমতি শিশুদের ওপর। এদিকে চরা লের ইউপি সদস্য সংবাদকর্মী সাইফুল ইসলাম রুদ্রকে বলেন, স্বাধিনতার ৪৯ বৎছর পার হলেও শিক্ষার হার এখনো থমকে আছে আমাদের এই চরা লে। এই চরা লে কেউই শিক্ষক হয়ে থাকতে চান না এই বিদ্যালয়ে যেহেতু কোন ভাল যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায়।
এদিকে শিক্ষাবিদরা মনে করেন যে, চরা লের শিক্ষা হার বাড়াতে প্রতি শিক্ষককে কমপক্ষে ৩ বৎসর থাকতে হবে চরা লে। অযথায় তাদের দ্রæত বদলি হলেই প্রভাব পড়বে এই চরা ল এলাকায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ