1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০১:০০ অপরাহ্ন

কালিগঞ্জে মরা গরু জবাই!

  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৫৮ বার পড়া হয়েছে

আব্দুল কাদের, কালিগঞ্জ প্রতিনিধি : কালিগঞ্জে মরা গরু জবাই করাকে কেন্দ্র করে কসাই আব্দুল কাদের জিলানীকে (২৫) কে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। ২৪শে ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার সময় কালিগঞ্জ উপজেলার ফুলতলা গোল চত্তরের পাশে সামছুরের চায়ের দোকানের সম্মুখে এঘটনা ঘটে। স্থানীয় ব্যবসায়ী আব্দুল হামিদ, শাহজালাল, ফারুক হোসেন সহ একাধিক ব্যক্তি জানান দূর্ঘটনায়  মরা গরু রাতের আঁধারে এনে উপজেলার বাজারগ্রাম রহিমপুর গ্রামের দেলবার চৌকিদারের পুত্র কসাই লুৎফর রহমান ও তার সহযোগী আব্দুল কাদের জিলানী এবং একই গ্রামের আব্দুল গফফারের পুত্র জাহাঙ্গীর মিলে ভোর আনুমানিক ৫টার সময় চুরি করে জবাই করে। ঐ সময় আমরা দেখতে পেয়ে সাথে সাথে ঘিরে ফেললে কসাই লুৎফর এবং জাহাঙ্গীর দ্রুত মটরসাইকেল যোগে পালিয়ে যায়। সহযোগী আব্দুল কাদের জিলানীকে আটকিয়ে রেখে উত্তেজিত জনতা থানায় খবর দেয়। থানা হতে উপ পরিদর্শক সেলিম রেজা সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে সহযোগী আব্দুল কাদের জিলানী কে গ্রেপ্তার করে। পরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রে নজিবুল আলম কে খবর দেয়। খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নজিবুল আলম এবং উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক আব্দুস সোবাহান কে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে জবাই করা গরুটিকে ময়না তদন্তের জন্য উপজেলা প্রাণী সম্পদ হাসপাতালে পাঠানো হয়। উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মনোজিৎ কুমার ময়না তদন্ত শেষে রুঘ্ন গরু বলে রিপোর্ট দেওয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নজিবুল আলম সহযোগী আব্দুল কাদের জিলানী কে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে এ যাত্রায় রেহাই দেয়। দীর্ঘদিন ধরে কালিগঞ্জ উপজেলা ফুলতলা বাজারে কসাইরা অধিক মুনাফা লাভের আশায় গ্রামগঞ্জ হইতে রুঘ্ন মরা, ছাড়াও অল্প দামে গাভী গরু কিনে এনে রাতের আঁধারে জবাই করে এঁড়ে গরুর মাংস বলে বেশি দামে বিক্রি করে অধিক মুনাফা লাভ করে আসছিল। এর আগেও এধরনের একাধিক ঘটনা ঘটলেও দেখার কেউ নেই। বিগত সহকারী কমিশনার ভুমি শিমুল কুমার সাহা থাকতে তিনিও হাতে নাতে মরা গরুর মাংস ধরে জরিমানা ও বিনষ্ট করে ছেড়ে দেয়। কয়েক মাস আগে সাদপুর হতে মরা গরু কিনে এনে জবাই করার প্রাক্কালে থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা দিয়ে সে যাত্রায় রেহাই পেলেও মরা গরু বিক্রির অপকর্ম থেমে নেই। উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসের পক্ষ থেকে প্রতিদিন একজন করে কর্মকর্তা কর্মচারীর উপস্থিতিতে গরু পরীক্ষা করে জবাই করার কথা থাকলেও বাজারে কোনদিন তাদের কে দেখতে পাওয়া যায়নি। স্থানীয় নাম না প্রকাশ করার শর্তে একাধিক ব্যবসায়ীরা জানান প্রাণি সম্পদ অফিসে মাসোহারা দেওয়ায় তার নিবিঘ্নে অপকর্ম চালিয়ে গেলেও দেখার কেউ নেই। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ