1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৫৮ পূর্বাহ্ন

রাঙ্গুনিয়া পৌর নির্বাচনে কাউন্সিল প্রার্থী হতে চান বেলাল

  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩১৩ বার পড়া হয়েছে
এম. মতিন, চট্টগ্রাম : রাঙ্গুনিয়া পৌর নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হলেও এখনো নির্বাচনের সুনির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা হয়নি। নির্বাচন অনুষ্ঠানের দিনক্ষণ চুড়ান্ত না হলেও রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা, জল্পনা-কল্পনা। কে হচ্ছেন পৌরসভার পরআর্তী কান্ডারী।  ইতিমধ্যে মেয়রপদে দলীয় মনোনয়ন পেতে আ’লীগের অর্ধডজন নেতা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে। মেয়রের দৌড়ঝাপের পাশাপাশি বসে নেই দলীয় কাউন্সিল প্রার্থীরাও। একাধিক কাউন্সিল প্রার্থীরা নিজেদের প্রার্থীতার জানান দিতে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া অনুষ্ঠানে নিজেদের অংশ গ্রহণ নিশ্চিত করে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।
এরই ধারাবাহিকতায় আসন্ন পৌর নির্বাচনে ৭ নং ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিল প্রার্থী হতে চান উপজেলা যুবলীগের ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক  রাজপথ থেকে উঠে আসা মুজিব আদর্শের এক অগ্রণী সৈনিক যুবলীগ নেতা মো মিনাজুর রহমান বেলাল।  দলের দুঃসময়ের ত্যাগী, পরীক্ষিত ও নিযার্তিত এ যুবলীগ নেতা এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন ও সমাজ সেবামূলক কর্মকান্ডে দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। সাদা মনের মানুষ হিসেবে এবং মুখের উপর সত্য কথা বলা পরিচ্ছন্ন ব্যাক্তি, ক্লিন ইমেজ ও দলের নিবেদিতপ্রাণ হিসেবে পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড মুরাদনগর এলাকার জনসাধারনের কাছে তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। সেই সাথে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড এলাকার গরীব মানুষের সাথে তার নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে।
প্রতিদিনই তিনি মুরাদনগর পৌর এলাকার পাড়া-মহল্লা, ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসাধারনের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মতবিনীময় করছেন। দলের নেতাকর্মীদের কাছে নিজের রাজনৈতিক জীবনের বিভিন্ন লড়াই সংগ্রাম ও চড়াই-উৎড়াইয়ের বিবরণ তুলে ধরচ্ছেন। তবে এলাকাবাসীর আস্থা অর্জনও তিনি করতে সক্ষম হয়েছেন। পজেটিভ ভুমিকার মানুষ হওয়ায় দলীয় নেতা-কর্মি সমর্থকসহ ভোটারদের কাছে শীর্ষে রয়েছে তাঁর জনপ্রিয়তা। অনেকটা ৭নং ওয়ার্ডে তাঁর শক্ত অবস্থান দলের নীতিনির্ধারক মহল ও সাধারণ মানুষের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হয়েছে।
জানা যায়, যুবলীগ নেতা মোঃ মিনাজুর রহমান বেলাল রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের মুরাদনগর গ্রামের সম্ভ্রান্ত বুনিয়াদী মুসলিম পরিবার হাজী রমজু মিয়া সওদাগরের নাতি। তাঁর পরিবারের সকলেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে কোনো ভাবে জড়িত রয়েছেন। এককথায় তিনি আপাদমস্তক আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান।  মিনাজুর রহমান বেলাল ১৯৯৮ সালে রাঙ্গুনিয়া বহুমুখী  আদর্শ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণীর ছাত্র থাকাবস্থায় ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত হন। ২০০০ সালে এসএসসি পাশ করার পর ছাত্রলীগের রাজনীতিতে প্রকাশ্যে এসে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার বিরোধী কেন্দ্র ঘোষিত আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রভাগে থেকে নেতৃত্ব দেন। তৎসময় জোট সরকার বিরোধী আন্দোলন করতে বিএনপি- জামায়াতের রোষানলে পড়ে এইচ এস সি পরীক্ষা দেওয়া আর সম্ভব হয়নি।
ছাত্রলীগের রাজনীতি করতে গিয়ে তাকে বার বার নির্যাতন, মিথ্যা মামলায় হয়রানীর শিকার হতে হয়েছে। ঐ বিএনপি জোট সরকারের আমলে ২টি মিথ্যা বানোয়াট হত্যা মামলাসহ ৩টি মামলার আসামি হন, এবং তাতে কারাবরণও করতে হয়েছে তাকে। তারপরও তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে এক মুহুর্তের জন্যও সরে যাননি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ ও লালন করে তার স্বপ্নের সোনারবাংলা বিনির্মাণে নিঃস্বার্থ ও নিরলসভাবে কাজ করে আসছেন। এরপর কারাগার থেকে বেরিয়ে এসে বিএনপি জোট সরকারের  রোষানল থেকে বাঁচতে পরিবারের চাপে তাঁকে প্রবাসে চলে যেতে হয়। পরে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে ২০১০ সালে প্রবাস থেকে দেশে ফিরে এসে আবার আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। এবং ২০১৭ সালের ৩০ এপ্রিল  অনুষ্ঠিত উপজেলা যুবলীগের সম্মেলনের মাধ্যমে যুবলীগের ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হন।
বর্তমানে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে এই দায়িত্ব সঠিক, সততা এবং নিষ্ঠার সাথে পালন করে যাচ্ছেন। মিনাজুর রহমান বেলাল বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে রাজনীতি করে আসছি। আমার ব্যক্তিগত কোনো চাওয়া-পাওয়া নেই। মূত্যুর আগ মুহুর্ত পর্যন্ত পৌরবাসীর জন্য কিছু করে যেতে চাই। পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের সকল শ্রেনী-পেশার মানুষের নাগরিক অধিকার পূরণ করে একটি বাসযোগ্য মডেল পৌর ওয়ার্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করাই আমার স্বপ্ন।’ এরই লক্ষ্যে দলমত নির্বিশেষে সবশ্রেণী পেশার মানুষের কাছে তিনি দোয়া ও সার্বিক সহযোগিতা চেয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ