1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থী কবির উদ্দীন তোতাকে সংবর্ধনা দেবহাটায় প্রভাবশালী কর্তৃক নির্যাতিত সংখ্যালঘু পরিবারের সংবাদ সম্মেলন দেবহাটা’য় আ.লীগের নৌকার দলীয় মনোনয়ন গ্রহণ দেবহাটায় আ.লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আসাদুলের সংবাদ সম্মেলন যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা : শ্বশুর আটক কুলিয়ায় জনসাধারণের সাথে মতবিনিময় করলেন আছাদুল হক বাংলাদেশ গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতির সদস্যদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য সাইন্টিফিক সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্যামনগরে কমিউনিটি ওয়াশ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত পাইকগাছা উপজেলায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষাকল্পে জরুরী মতবিনিময় রেড ক্রিসেন্ট পক্ষ থেকে বাংলাদেশ অবসর প্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী কল্যাণ সমিতির মাঝে মাস্ক প্রদান

প্রেম করে বিয়ে: মিথ্যা হয়রানির শিকার যুবক

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৮৪ বার পড়া হয়েছে
বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোরের শার্শায় ভালোবাসার পর বিয়ে করা সংসারে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করাসহ মিথ্যা হয়রানির শিকার হয়ে বাড়ী ছেড়ে স্ত্রীকে নিয়ে পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছে হুসাইন নামের এক যুবক। এঘটনায় পর স্বামীকে বাঁচাতে যশোর আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন স্ত্রী সুমাইয়া ইয়াসমিন।  ঘটনাটি ঘটেছে শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া মাঠপাড়া এলাকায়।   সুমাইয়া ইয়াসমিন জানান, তিনি যখন খুব ছোট। তার পিতা তাকে অন্যত্র বিয়ে দেয়।যে বিয়ে তার পছন্দ ছিলো না। সে প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার পর বাগআঁচড়া সাতমাইল মাঠপাড়া গ্রামের আকরাম আলী মোল্লার ছেলে হুসাইনের সাথে একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে সুমাইয়া ইয়াসমিনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এঘটনা সুমাইয়ার পরিবারে জানাজানি হলে সুমাইয়া পারিবারিক ভাবে নির্যাতনের শিকার হয়। এর এক পর্যায়ে সুমাইয়া বাড়ী থেকে পালিয়ে হুসাইনের কাছে চলে আসে এবং তাকে বিয়ে না করলে আত্বহত্যা করবে বলে সাফ জানিয়ে দেয়।এক পর্যায়ে বিয়ের পর তাদের সংসার সুখের হবে ভেবে দুজনার সম্মতিতে তারা গত ১০ই এপ্রিল পালিয়ে গিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়ের একমাস পর সুমাইয়ার পরিবারের পক্ষে তার পিতা শহিদুল ও মাতা আনোয়ারা তাদের বিয়ে মেনে নেবে বলে মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে বাড়ীতে নিয়ে আসে। বাড়ীতে নিয়ে আসার পর সুমাইয়ার পিতা শহিদুল ও মাতা আনোয়ারা তাকে আটকে রেখে জোর করে ডিফোর্সের কাগজে সই নিয়ে নেই।এর ৮ মাস পর সুমাইয়া আবার পালিয়ে চলে আসে হুসাইনের কাছে এবং তারা ২৪শে নভেম্বার ফের বিয়ে করে।কিন্তু এই বিয়েটাকে বরাবরের মত মানতে নারাজ সুমাইয়ার পিতা মাতা। যার কারনে তিনি হুসাইনের বিরুদ্ধে অব্যাহত ভাবে অপহরন মামলার হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ সুমাইয়ার। এতে ক্ষ্যান্ত হননি তারা অব্যাহত রেখেছেন বিভিন্ন হুমকি।যার ফলে প্রান ভয়ে হুসাইন ও স্ত্রী সুমাইয়া এখন পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এমন পরিস্হিতিতে জীবন শস্কায় থাকা স্বামীকে বাঁচাতে নিরুপায় হয়ে যশোর আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেছেন স্ত্রী সুমাইয়া। এদিকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানিসহ অব্যাহত হুমকির কারনে চরম উৎকন্ঠায় জীবন যাপন করছে হুসাইনের স্ত্রীসহ তার পরিবার।বিষয়টি উপর মহলের কাছে সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানিয়েন তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ