1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ১২:৫৫ অপরাহ্ন

যুবলীগ নেতার বাড়ি থেকে পেট্রোল বোমা উদ্ধার, ‘ষড়যন্ত্র’ বলছে আ.লীগ

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৬৬ বার পড়া হয়েছে
যুবলীগ নেতার বাড়ি থেকে উদ্ধারকৃত তিনটি পেট্রোল বোমা।

মোমিনুর রহমান, দেবহাটা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলা যুবলীগের সহ-সম্পাদক মহিউদ্দীনের বাড়ি থেকে তিনটি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। যুবলীগ নেতা মহিউদ্দীন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আসন্ন উপ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব মুজিবর রহমানের কর্মী।

আজ শনিবার সকালে যুবলীগ নেতা মহিউদ্দীন তার বাড়ির রান্নাঘরে একটি প্লাস্টিকের বাজারের ব্যাগের মধ্যে বোমা সদৃশ বস্তু দেখে সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতনসহ প্রশাসনকে বিষয়টি জানান। পরে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌছে অবিস্ফোরিত অবস্থায় পেট্রোল বোমা তিনটি উদ্ধার করে। এর আগে শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে কোনো এক অজ্ঞাত সোর্সের তথ্যের ভিত্তিতে যুবলীগ নেতা মহিউদ্দীনের বাড়িতে দেবহাটা থানার এসআই মিজানের নেতৃত্বে ঘণ্টাব্যাপী অভিযান চালায় পুলিশ। সে সময়ে পুলিশ সদস্যরা মহিউদ্দীনের শোবার ঘরসহ বাড়ির বিভিন্ন স্থানে তল্লাশী করেও পেট্রোল বোমা কিংবা কোনো অবৈধ মালামাল খুঁজে পায়নি। এদিকে যুবলীগ নেতার বাড়ির রান্নাঘর থেকে পেট্রোল বোমা উদ্ধারের ঘটনাকে পূর্ব পরিকল্পিত ও ষড়যন্ত্রমূলক বলে দাবি করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা।

দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আসন্ন উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব মুজিবর রহমান বলেন, ‘আগামী ১০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদের উপ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অন্যান্য ইউনিয়নের মতো সখিপুর ইউনিয়নেও আমি জনসমর্থনে এগিয়ে আছি। সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ফারুক হোসেন রতনের নেতৃত্বে যুবলীগ নেতা মহিউদ্দীনসহ মূল দল ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং আমার কর্মী-সমর্থকরা দিনরাত নৌকার পক্ষে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। মূলত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন এবং কর্মী-সমর্থকসহ নেতাকর্মীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টির করতে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ্ব রফিকুল ইসলামের লোকজন রাতের আঁধারে যুবলীগ নেতা মহিউদ্দীনের বাড়িতে পেট্রোল বোমাগুলো রেখে আসে। তাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।’ অজ্ঞাত যে ব্যক্তি পুলিশকে পেট্রোল বোমার তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছে তাকে আইনের আওতায় এনে মূল রহস্য উদঘাটনেরও দাবি জানান তিনি। তবে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে পেট্রোল বোমা রাখার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম। দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, ‘পেট্রোল বোমা উদ্ধারের ঘটনা অনুসন্ধানে ইতোমধ্যেই পুলিশ মাঠে নেমেছে। তদন্ত শেষে ঘটনার  রহস্য উন্মোচন করা হবে এবং প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

দেবহাটা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শেখ ইয়াছিন আলী বলেন, ‘ঘটনাটি ষড়যন্ত্রমূলক কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ১০ ডিসেম্বর সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে উপ-নির্বাচন সম্পন্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর রয়েছে।’ নির্বাচন ঘিরে যদি কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠী অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা করে তাহলে তাদেরকে কঠোরভাবে দমন করা হবে বলেও হুঁশিয়ার করেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ