1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০৪ অপরাহ্ন

বসতবাড়ী ভাংচুর ও গাছ-পালা কর্তন করে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করার অভিযোগ

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০
  • ৬৫ বার পড়া হয়েছে

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছার শফিকুল ইসলাম নামে প্রভাবশালী এক ব্যক্তি হরিণখোলা মৌজার নালিশী জমি থেকে বিজলী মন্ডল ও তার পরিবারকে উচ্ছেদের পায়তারা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ইতোমধ্যে প্রভাবশালী ওই ব্যক্তির লোকজন বিজলীর বসতবাড়ী ভাংচুর ও গাছ-পালা কর্তন করে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করেছে বলে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন বিজলী মন্ডল। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা আইন শৃংখলা সভায় ব্যাপক আলোচনা হয়।
প্রাপ্ত অভিযোগে জানাগেছে, উপজেলার দেলুটি ইউনিয়নে হরিণখোলা মৌজার এসএ ৮৩ ও হালজরিপের ১/১ খতিয়ানের ১০১৭, ১০১২, ১০১৯, ১০২০, ১০২১, ১০২৩, ১০২৪, ১০২৫, ১০৪৪, ১০৫২, ১০৫৩, ১০৫৫ ও ১০৬৪ দাগে মোট ৯.৭০ একর জমির মধ্যে ৪ একর নালিশী সম্পত্তি নিয়ে হরিণখোলা গ্রামের স্বপন রায়ের স্ত্রী বিজলী রায় গংদের সাথে খুলনার বাসিন্দা (বর্তমান হরিণখোলা) মৃত আকবার খানের ছেলে শফিকুল ইসলাম খান এর মধ্যে বিরোধ দেখা দিয়েছে। বিজলী মন্ডল জানান, সিএস ৮৩ বর্তমান ১/১ খতিয়ানের ৪১৮ দাগে ১.৩৩ একর জমিতে বসতবাড়ী নির্মাণ, পুকুরে মাছ চাষ ও জমিতে ফসল উৎপাদন করার মাধ্যমে আমি ও আমার পরিবার বর্গ প্রায় ৪০ বছর যাবৎ ভোগ দখলে আছি। এ মর্মে দেলুটি ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল আমাদের একটি প্রত্যয়নও দিয়েছেন। খুলনার বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম খান ১৯/১২/২০১৯ সালে ৩৫৮১ নং দলিল মুলে নারায়ণ চন্দ্র মন্ডল ও এ্যাডঃ শেফালী মন্ডলের নিকট থেকে ৪.৫৯ একর জমি পাওয়ার অব এ্যাটর্নি করে নেয়। বাটয়ারের মাধ্যমে শফিকুলের দলিলে পূর্ব-পশ্চিম চৌহদি দেওয়া থাকলেও উত্তর-দক্ষিণে দাবী করে আসছে। পাওয়ার নামা করার পর থেকে শফিকুল আমাদের ভোগ দখলীয় সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদ করার পায়তারা শুরু করে। বিভিন্ন সময়ে হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করায় আমরা শফিকুল ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে থানায় পৃথক দুটি জিডি করি। যার নং- ৭২২, তাং- ১৪/০৭/২০২০ ইং এবং ১৪৭, তাং- ০৪/০৮/২০২০ ইং। এছাড়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ২৪/০৮/২০২০ ইং তারিখে ৯২/২০২০ নং এমআর মামলা করি। মামলায় বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট শান্তি শৃংখলা রক্ষার জন্য নালিশী জমিতে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার জন্য থানার ওসি’কে নির্দেশ দেন। আদালতের এ নির্দেশনা উপেক্ষা করে আমাদের উচ্ছেদ করার উদ্দেশ্যে শফিকুল ও তার ভাড়াটিয়া লোকজন তার কয়েক দফায় আমাদের বসতবাড়ীতে হামলা করে বসতঘর ভাংচুর, গাছ-পালা কর্তন, পুকুরের মাছ ধরে নিয়ে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করেছে। বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে প্রতিটি মুহূর্ত আমরা উদ্বেগ এবং উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছি। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বিজলী ও তার পরিবার।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ