1. mirzaromeohridoy@gmail.com : Kazi Sakib : Kazi Sakib
  2. hridoysmedia@gmail.com : news :
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেবহাটার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসারের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যানের শুভেচ্ছা বিনিময় সাতক্ষীরা পৌর আ.লীগ ৪নং ওয়ার্ড শাখার ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল ২০২১ অনুষ্ঠিত জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানে দেবহাটায় মানববন্ধন এমপি বাবু’র সাথে নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানদের শুভেচ্ছা বিনিময় পাইকগাছার ব্যবসায়ী বিধান এর এক সপ্তাহেও খোঁজ মেলেনি ১৫ দফা দাবিতে চট্টগ্রাম বন্দরে চলছে ধর্মঘট সাতক্ষীরায় ১০ ইউপিতে নৌকা, ১১টিতে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী পাইকগাছা পৌরসভা এসডিজি ফোরামের সভা অনুষ্ঠিত পাইকগাছার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন পাইকগাছার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ, সার ও নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান

আমাকে আস্তে বল করো : হারিসকে আফ্রিদি

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৫২ বার পড়া হয়েছে

স্পোর্টস ডেস্ক : সোমবার রাতে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) দ্বিতীয় এলিমিনেটর ম্যাচে ঘটেছে এক মজার ঘটনা। তরুণ পেসার হারিস রউফের এক দ্রুতগতির ইয়র্কার ডেলিভারিতে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যান শহিদ আফ্রিদি। তাকে আউট করার পর হাত জোর করে ক্ষমা চাওয়ার ভঙ্গি করেন হারিস। সেই ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। আফ্রিদিকে আউট করে ক্ষমা চেয়েছেন হারিস, এমন মন্তব্য করতে থাকেন সবাই। তবে হারিস পরে পরিষ্কার করেছেন ঘটনা, জানিয়েছেন মূলত তার উদযাপনেরই অংশ ছিল এটি। আফ্রিদি একজন কিংবদন্তি খেলোয়াড় হওয়ায় তার প্রতি সম্মান প্রদর্শনে হাত জোড় করেছিলেন তিনি। ক্রিকইনফোর সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছেন হারিস। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে সেই ভিডিও আপলোড করে ক্রিকইনফো। সেই ভিডিও রিটুইট করে আফ্রিদি আবার মজা করে হারিসের কাছে আবদার রেখেছেন, পরেরবার যেন তাকে আস্তে বোলিং করা হয়। আফ্রিদি-হারিসের এই খুনসুঁটিই এখন পাকিস্তানের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের আলোচ্য বস্তু। আফ্রিদি লিখেছেন, ‘এটা অসাধারণ এবং আনপ্লেয়েবল ইয়র্কার ছিল। হারিস দুর্দান্ত বোলিং করেছে। পরেরবার আমাকে আস্তে বল করো। (লাহোর) কালান্দার্সকে ফাইনালের জন্য শুভকামনা। আগামীকাল (আজ) জমজমাট এক ফাইনাল দেখার আশায় আছি। সুলতানসদের ধন্যবাদ, পুরো আসরজুড়ে আমাদের সমর্থন দিয়ে যাওয়ায়।’

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় এলিমিনেটর ম্যাচটিতে আফ্রিদি যখন উইকেটে আসেন তখন বেশ চাপেই ছিল মুলতান সুলতানস। লাহোর কালান্দার্সের করা ১৮২ রান তাড়া করতে তখনও ৩৮ বলে ৬৭ রান প্রয়োজন ছিল মুলতানের। সবার আশা ছিল আফ্রিদি হয়তো তার ধুমধারাক্কা ব্যাটিংয়ের প্রদর্শনী করে মুলতানকে ম্যাচ জেতাবেন। কিন্তু হয়েছে এর উল্টোটাই। হারিস রউফের মুখোমুখি প্রথম বলেই সোজা বোল্ড হয়ে যান আফ্রিদি। বল হাতে ৪ ওভারে মাত্র ১৮ রান খরচায় ২ উইকেট নিলেও ব্যাট হাতে গোল্ডেন ডাক সঙ্গী করেই সাজঘরে ফেরেন তিনি। পরে মুলতান অলআউট হয় ১৫৭ রান, ম্যাচটি হারে ২৫ রানের ব্যবধানে ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ